Latest News

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা🦠 আক্রান্ত হয়েছেন ২২,৭৭১ What's New Life দেশের ৬ শহর থেকে কোনও বিমান আসবে না কলকাতা বিমানবন্দরে What's New Life বাঁধাকপি মুসুর দিয়ে ধোকার ডালনা What's New Life পশ্চিমবঙ্গে করোনা🦠 আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়ালো ২০,০০০ মৃত ৭০০ পার What's New Life ৪.৭ মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো দিল্লি What's New Life 🇵🇰 পাকিস্তানে বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত অন্তত ২০ শিখ তীর্থযাত্রী What's New Life 🦠করোনা আক্রান্ত লকেট চ্যাটার্জী, জানালেন ট্যুইটে What's New Life 🇷🇺 রাশিয়ার ভ্লাদিভোস্তক শহরকে নিজেদের বলে দাবি করল চীন 🇨🇳 What's New Life সিডিএসকে নিয়ে লাদাখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী What's New Life দুষ্কৃতীদের সঙ্গে এনকাউন্টারে নিহত ৮ উত্তরপ্রদেশের পুলিশকর্মী What's New Life

রোহিঙ্গা ইস্যুতে ব্যর্থ​ জাতিসংঘ :​ বাংলাদেশ​

রোহিঙ্গা সঙ্কট নিরসনে জাতিসংঘের পদ্ধতিগত ব্যর্থতার কথা তুলে ধরেছেন বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। সম্প্রতি নিউ ইয়র্কে রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে আয়োজিত প্লেনারি আলোচনায় বক্তব্যকালে তিনি এই ব্যর্থতার বিষয়গুলো তুলে ধরেন।​
‘ইউএনবি’র খবরে বলা হয়, মধ্য আমেরিকার দেশ গুয়েতেমালার সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী গার্ট রোজেনথালের ‘মিয়ানমারে ২০১০ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত জাতিসংঘের সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে স্বাধীন তদন্ত’ শীর্ষক প্রতিবেদনকে উদ্ধৃতি করে রাষ্ট্রদূত মাসুদ এসব কথা বলেন।
জাতিসংঘে এই রাষ্ট্রদূত তার বক্তব্যে বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের ওপর যে বীভৎস সহিংসতা হয়েছে আমাদের তা অস্বীকারের কোনো উপায় নেই। তথ্য-প্রযুক্তিগত সব ধরনের আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকার পরও পূর্ব সতর্কতা নিরূপণের ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা থাকার কথা নয়। তবে মিয়ানমারে নিযুক্ত জাতিসংঘের প্রতিনিধি ও প্রতিষ্ঠান এই সর্তকতা প্রদানে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়।’

এ দিকে শনিবার (২৯ জুন) জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনের পক্ষ থেকে একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়। যেখানে রাষ্ট্রদূত মাসুদ উল্লেখ করেন, ‘রোহিঙ্গা সমস্যাটি ছিল ব্যাপক ও গভীর, এটি হঠাৎ করেই সৃষ্টি হয়নি। এখানে পূর্ব সতর্কতা চিহ্ন প্রাপ্তির কোনো ঘাটতি থাকার কথা নয়। তবে এ ক্ষেত্রে সময়োপযোগী পদক্ষেপের ভীষণ ঘাটতি ছিল। রোহিঙ্গা ইস্যুতে কেন এবং কোন কোন ক্ষেত্রে জাতিসংঘ ব্যবস্থা গ্রহণে ব্যর্থ হয়েছে তা রোজেনথালের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে স্পষ্টভাবে উঠে এসেছে।’
বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত মাসুদ রোজেনথালের করা প্রতিবেদনের অংশ বিশেষ তুলে ধরে বলেন, ‘এটি অবশ্যই বলা যেতে পারে যে; রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘ সদর দপ্তরের যখন নিরাপত্তা পরিষদ থেকে বিশেষ সমর্থন ও ধারাবাহিক সহযোগিতা প্রয়োজন ছিল তখন তারা সেই সমর্থন যোগাতে ব্যর্থ হয়েছে। আর তাই এ দায়ের অংশ বিশেষ এসব প্রতিষ্ঠানের ওপর অনেকাংশে বর্তানো প্রয়োজন।’

২০১৭ সালে নিজেদের জীবন বাঁচাতে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে চলে আসা রোহিঙ্গাদের মানবিক আশ্রয় ও সহযোগিতা প্রদানে বাংলাদেশ সরকার ও জনগণের উদারতার কথাও উল্লেখ করেন স্থায়ী এই প্রতিনিধি। তিনি বলেন, ‘ভয়াবহ নির্যাতন ও সহিংসতা থেকে বাঁচতে রোহিঙ্গাদের পালিয়ে আসার দৃশ্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যখন অসহায়ের মতো চেয়ে চেয়ে দেখছে তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এগিয়ে এসেছেন। শেখ হাসিনা তার সাহসী নেতৃত্বের মাধ্যমে যদি ভাগ্য বিড়ম্বিত অসহায় এই জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় না দিতেন তাহলে তাদের যাওয়ার আর কোনো জায়গা থাকতো না।’

ছবি সংগৃহিত

Facebook Comments

KOLKATA WEATHER
Thappad Shubh Mangal jyada Saavdhan Bhoot Love Aaj Kal Porshu Love Aaj Kal (लव आज कल 2) Professor Shonku Bombshell The Grudge অসুর রবিবার Sanjhbati
What's New Life