Latest News

এখনো জ্বলছে ব্রাজিলের আমাজন What's New Life কাশ্মীর নিয়ে উস্কানিমূলক ট্যুইট, পাকিস্তানের ২০০টি ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড What's New Life চায়ের দোকানে ঢুকে তিনি নিজের হাতে চা বানালেন মুখ্যমন্ত্রী What's New Life বাংলাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৬০,০০০ What's New Life নিজের ভুলের জন্য ক্ষমা চাইলেন মিকা সিং What's New Life সেপ্টেম্বরেই রাফায়েল জেট পাবে আইএএফ What's New Life কাশ্মীরের এই অবস্থার জন্য দায়ী ​ব্রিটেন : আয়াতুল্লাহ খামেনি What's New Life এক সপ্তাহ হসপিটালে থাকার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় What's New Life মিয়ানমারের শান রাজ্যে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ৩০ সেনা What's New Life ‘নো টাইম টু ডাই’- এ শেষ বারের মতো দেখা যাবে বন্ড চরিত্রে ড্যানিয়েলকে What's New Life
অবশেষে কর্ণাটকে কংগ্রেস জোট সরকারের অবসান

দীর্ঘ অচলাবস্থার পর অবশেষে ভারতের কর্ণাট­কে কংগ্রেস নেতৃত্বাধ­ীন জোট সরকার ভেঙ্গে গেল। মঙ্গলবার বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমরাস্বামীর সরকার আস্থা ভোটে হেরে গেলে সরকার ভেঙে দেন স্পিকার।​ এরপর গভর্নরের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন মুখ্যমন্ত্রী। মঙ্গ­লবার বিধানসভায় আস্থা ভোটে কংগ্রেসের জোট সরকারের পক্ষে পড়েছে ৯৯টি অপরদিকে ১০৫টি ভোট পড়েছে বিজেপির পক্ষে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ১৬ জন বিধায়ক পদ­ত্যাগ ও সরকার থেকে দুজন স্বতন্ত্র বিধায়ক সমর্থন প্রত্যাহার করে নেয়ার ফল এই ভোট।
গত সপ্তাহ থেকেই আস্থা ভোট হবে হবে করেও হচ্ছিল না কর্ণাটক বিধানসভায়। মঙ্গলবার আস্থা ভোটের আগে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন কংগ্রেস ও বিজেপির কর্মী সম­র্থকরা। দুজন নির্দলীয় বিধায়ককে জোট সরকারের পক্ষে ভোট দেয়ার জন্য নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে কংগ্রেস।

মুখ্যমন্ত্রী এএইচডি কুমারস্বামী বলেন, বি­শেষ করে এই বিতর্কের শেষ নিয়ে চিন্তিত নন তিনি। আবেগপ্রবণ হয়ে কুমারস্বামী বলেন, এস­বের থেকে, তিনি খুশি মনে ছেড়ে দেবেন। তিনি বলেন, ‘আমি সৌজন্যের সঙ্গে কাজ করেছি। শেষ ১৪ মাসে তারা থাকবে না যাবে এই অবস্থা ছিল। আমি আমার দলের নেতাদের ধন্যবাদ জানাই সবকিছুর সঙ্গে থাকার জন্য।’
আস্থা ভোটের জন্য সন্­ধ্যা সাড়ে ছয়টা পর্যন­্ত সময়সীমা দেয়া হলেও বিতর্কের সময় ট্রেজা­রি বেঞ্চ ফাঁকা থাকতে দেখে দুঃখের সঙ্গে বিধানসভার স্পিকার কে আর রমেশ কুমার বলেন, ‘এটাই কি অধ্যক্ষ বা বিধানসভার ভাগ্য ছিল? এরপরেই কুমারস্বামী বলেন, ‘আপনি বিশ্বাসয­োগ্যতা হারিয়েছেন, নি­জের ক্ষমতা ছাড়ুন।’
কর্ণাটকের গভর্নর বাজ­ুভাই বালার কাছে পদত্­যাগ পত্র দিচ্ছেন মুখ­মন্ত্রী এইচডি কুমারা­স্বামী

অবশেষে কর্ণাটকে কংগ্রেস জোট সরকারের অবসান

গত কিছুদিন ধরে কার্যত ‘রাজনৈতিক নাটক’ চল­ছিল কর্ণাটকে। একাধিক বিধায়ক পদত্যাগ করলেও পদত্যাগপত্র প্রথমে গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানান স্পিকার। কিন­্তু তারা তাদের অবস্থ­ানে অনড় থাকেন। দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর অবশে­ষে মঙ্গলবার হয় আস্থা ভোট।
২০১৮ সালে বিধানসভা নির্বাচনে প্রদেশের মোট ২২৪টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস পায় ৮০টি এবং বিজেপি পায় ১০৫টি আস­ন। তবে ধর্মনিরপেক্ষ জনতা দলের (জেডিএস) ৩৭ জন এবং বহুজন সমাজ পার্টির ১ জন বিধায়ককে নিয়ে জোট করে সরকার গঠন করে কংগ্রেস।

অবশেষে কর্ণাটকে কংগ্রেস জোট সরকারের অবসান

সরকার গঠন করলেও প্রথম থেকেই জোট শরিকদের মধ্যে মতৈক্য ছিল না। যদিও মুখ্যমন্ত্রী হন জনতা দলের এইচ ডি কুমারাস্বামী। তবে লোকসভায় কর্ণাটকে বিজে­পি দারুণ সফলতা পায়। মোট ২৬ টি লোকসভা আসনের মধ্যে তারা জয়ী হয় ২৪টিতে। আর কংগ্রেস এবং জনতা দল একটি করে আসন পায়। তারপর থেকেই প্রদেশে সরকার গঠনের চেষ্টা শুরু করে বি­জেপি।
গত লোকসভা নির্বাচনে টানা দ্বিতীয়বার দলের ভরাডুবি। সভাপতি রাহুল গান্ধী পদত্যাগ করেছেন। আর এর মধ্যেই এলো এমন দুঃসংবাদ। কংগ্রেসের এমন অবস্থার সুযোগে ক্ষমতাসীন বিজে­পি কর্ণাটক প্রদেশে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে। প্রথম থেকেই এই অচলাবস্থার জন্য বিজেপিকে দায়ী করে আসছে কংগ্রেস।
ছবি সংগৃহিত

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Super 30 The Lion King Mission Mangal Batla House শান্তিলাল ও প্রজাপতি রহস্য প্যান্থার সামসারা Once Upon a time in Hollywood Fast and furious: Hobbs and Shaw
What's New Life
Inline
Inline