Latest News

“সাপ্তাহিক লগ্নফল” - ১৫ থেকে ২১ সেপ্টেম্বর What's New Life ২৭ সেপ্টেম্বর​ জাতিসংঘে​ ভাষণ দেবেন শেখ হাসিনা What's New Life অতিথি বিচারকের দায়িত্ব পালন করতে ঢাকায় যাচ্ছেন ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ মানুষী চিল্লার What's New Life জলের খোঁজ মিললো পৃথিবী থেকে ১১১ আলোকবর্ষ দূরে আরো একটি গ্রহ ‘কে-টু-১৮বি’​-এ What's New Life অ্যামাজন উন্নয়ন নিয়ে মতৈক্যে ব্রাজিল-যুক্তরাষ্ট্র What's New Life হিন্দিকেই জাতীয় ভাষা করা উচিত : অমিত শাহ What's New Life বাহামায় আঘাত হানছে আরও একটি ঘূর্ণিঝড় What's New Life Recharge your day with the Power Breakfast at ibis Kolkata Rajarhat What's New Life সৌদির দু’টি তেল শোধনাগারে ড্রোন হামলা What's New Life কাশ্মীর ইস্যুতে জমিয়োতে উলামায়ে হিন্দকে পাশে পেলো মোদী সরকার What's New Life
‘তিন তালাক’ নিষিদ্ধের বিলে সম্মতি জানালেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ

দীর্ঘ টানাপোড়েন পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভা ও উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় পাস হওয়ার পর অবশেষে বহুল আলোচিত ‘তিন তালাক’ নিষিদ্ধের বিলে সম্মতি জানালেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। আর যার মাধ্যমে মুসলিম নারীদের তাৎক্ষণিক বিবাহ বিচ্ছেদ প্রসঙ্গের বিলটি এবার আইনে পরিণত হলো।​
অর্থাৎ এখন থেকে ‘তিন তালাক’ প্রথা অর্থাৎ তিন বার ‘তালাক’ শব্দটি উচ্চারণের মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটানো যাবে না; এমনকি যা একটি ফৌজদারি অপরাধ বলে গণ্য হবে। এসব ক্ষেত্রে স্ত্রীদের ‘তিন তালাক’ দিলে মুসলিম পুরুষদের অন্তত তিন বছরের জন্য কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।
সরকারি সূত্রের বরাতে গণমাধ্যম ‘এনডিটিভি’ জানায়, বহু জল্পনা-কল্পনার পর গত মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) ভারতীয় রাজ্যসভাতে ৯৯-৮৪ ভোটের ব্যবধানে পাস হয়েছিল এই ‘তিন তালাক’ নিষিদ্ধের বিল।

এতদিন তিনবার ‘তালাক’ শব্দটি উচ্চারণের মাধ্যমে স্ত্রীদের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ করার একচেটিয়া অধিকার ছিল সকল মুসলিম সমাজের পুরুষদের। সম্প্রতি বিষয়টির বিরোধিতায় করে সড়কে আন্দোলনে নামে একদল সংখ্যালঘু মুসলিম নারী। তাদের দাবি ছিল, বিতর্কিত এই ‘তিন তালাক’ প্রক্রিয়াকে অপরাধ বলে গণ্য করা এবং তা তাৎক্ষণিক বাতিল করা।​
এ দিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তার সরকারের প্রথম মেয়াদে বারংবার বিলটি পাসের দোরগোড়ায় গিয়েও প্রত্যাশিত ভোট না পাওয়ায় ব্যর্থ হয়েছিলেন। ২০১৪ সালে বিলটি লোকসভায় পাশ করালেও তখন এটি আর আইনে পরিণত করা সম্ভব হয়নি। তখন রাজ্যসভায় এনডিএ জোট সরকারের সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকাই এর প্রধান কারণ। যদিও এবার মোদী সরকার এমনটা আর হতে দেয়নি। কেননা তারা বরাবরই সংখ্যালঘু মহিলাদের সুরক্ষা প্রদানে ভীষণ তৎপর।
এর আগে গত ২৫ জুলাই ভারতীয় লোকসভায় পাস হওয়ার পর ৩০ জুলাই রাজ্যসভাতেও ভোটাভুটিতে পাস হয়ে যায় মুসলিম নারীদের অধিকার সুরক্ষা সংক্রান্ত এই বিলটি। যদিও এটিকে মোদী সরকারের দীর্ঘ নিরলস পরিশ্রমের ফল হিসেবে দেখছেন বেশিরভাগ বিশ্লেষক।​
অপর দিকে রাজ্যসভায় অনুমোদনের পর এক টুইট বার্তায় রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ লিখেছিলেন, ‘বহুল আলোচিত ‘তিন তালাক’ বিল (প্রোটেকশন অফ রাইটস অন ম্যারেজ) এবার রাজ্যসভায় পাশ হলো। লিঙ্গ নির্বিশেষে ন্যায় বিচারের প্রশ্নে এটা ভারতীয়দের জন্য একটি মাইলফলক। গোটা দেশের জন্য এটা একটা তৃপ্তির মুহূর্ত।’​

পরবর্তীতে এসবের প্রেক্ষিতে এবার বিতর্কিত এই বিলটিতে নিজের সম্মতি প্রদান করেছেন ভারতীয় এই রাষ্ট্র প্রধান। তবে বিরোধী কংগ্রেসসহ এখনো অনেকে এর বিরোধিতা করছেন। তাদের দাবি, ‘এর মাধ্যমে সমাজে পারস্পরিক বিশ্বাসের ঘাটতি সৃষ্টি হবে। যা ভোটের রাজনীতিতে ব্যাপক প্রভাব ফেলতে পারে।’

ছবি সংগৃহিত

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Mission Mangal Batla House শান্তিলাল ও প্রজাপতি রহস্য প্যান্থার Once Upon a time in Hollywood Fast and furious: Hobbs and Shaw Saaho গোত্র Angel Has Fallen The Angry Birds Movie
What's New Life
Inline
Inline