Latest News

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায়🦠 আক্রান্ত ৫৭,৩২,৮৮৪ জন মৃত ৩,৫৩,৮৯৮ What's New Life রাজ্যে মোট করোনা🦠 আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৪,১৯২ মৃত ২৮৯ What's New Life 🇵🇰প্রতিবেশি দেশগুলোর জন্য মোদি সরকার বিপজ্জনক : ট্যুইট ইমরানের What's New Life পরিযায়ী শ্রমিকদের পাঠানো নিয়ে এবার ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় What's New Life সপ্তাহের শেষে কালবৈশাখীর পূর্বাভাস What's New Life 🇺🇸 ভারত-চীন চলমান উত্তেজনাকে কেন্দ্র করে মধ্যস্থতা প্রস্তাব মার্কিন রাষ্ট্রপতির What's New Life "মন কি বাত" অনুষ্ঠানে লকডাউন ৫.০-এর ঘোষণা করতে পারেন মোদী What's New Life 🇻🇳 ভিয়েতনাম থেকে নবম শতাব্দীর শিবলিঙ্গ উদ্ধার What's New Life দেড় লক্ষ ছাড়ালো ভারতে করোনা 🦠আক্রান্তের সংখ্যা What's New Life ভারতীয় বায়ুসেনায় যুক্ত হল ১৮ স্কয়্যাড্রন 'ফ্লাইং বুলেটস' What's New Life

ভাবমূর্তি নষ্ট করার লক্ষ্যে মিথ্যে অপবাদ দেওয়া হয়েছে

“আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার লক্ষ্যে মিথ্যে অপবাদ দেওয়া হয়েছে আমার বিরুদ্ধে”। দিল্লির উচ্চ আদালতে বুধবার বললেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর। ৩১ অক্টোবর ছিল তাঁর আদালতে জবানবন্দি দেওয়ার দিন। প্রিয়া রমানির বিরুদ্ধে আকবরের করা মানহানির মামলার পরবর্তী দিন ধার্য হয়েছে ১২ নভেম্বর।
আকবর এ দিন আদালতে বলেন, “মিথ্যে এবং সাজানো অভিযোগ করা হয়েছে আমার বিরুদ্ধে। ২০১৭ সালে ভোগ পত্রিকায় লেখা প্রতিবেদনে আমার নাম উল্লেখ করেননি প্রিয়া।ম্যাগাজিন কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করেছিল তখন”। “সাজানো কতগুলো ঘটনায় আমাকে অভিযুক্ত করা হল। আমার পদের সুযোগ না নিয়ে ব্যক্তিগত ক্ষমতায় সুবিচার পাওয়ার জন্যই ক্ষমতা থেকে সরে গেছি আমি”, জানিয়েছেন আকবর।

দেশ জুড়ে #MeToo ঝড় ওঠার দিন কয়েকের মধ্যেই যৌন হেনস্থার অভিযোগ আসতে শুরু করেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। তার জেরে মন্ত্রিত্ব থেকে বিদায় নিয়েছেন গত ১৭ অক্টোবর। প্রাক্তন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী এম যে আকবরের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগ এনেছিলেন সাংবাদিক প্রিয়া রমানি। রমানির বিরুদ্ধে পাল্টা মানহানির মামলা করেছিলেন আকবর। ১৮ অক্টোবর দিল্লি আদালতে প্রথম মামলা ওঠার দিন উপস্থিত ছিলেন না তিনি। আজ, বুধবার, আদালতে তাঁর জবানবন্দি দেন আকবর।
এশিয়ান এজ-এর সাংবাদিক প্রিয়া রমানির পর এক এক করে প্রায় কুড়ি জন মহিলা আকবরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ আনেন। আকবর পালটা রমানির বিরুদ্ধে ফৌজদারি মানহানির মামলা করেন। ১৮ অক্টোবর মামলা গ্রহণ করে দিল্লি আদালত। ভারতীয় দন্ডবিধির ৫০০ ধারায় এই মামলাটি গ্রহণ করা হয়েছে বলে বৃহস্পতিবার জানায় আদালত। উল্লেখ্য, ভারতীয় দন্ডবিধির ৫০০ ধারা অনুযায়ী, অভিযুক্ত দোষী সাব্যস্ত হলে দু’বছরের কারাদন্ড অথবা জরিমানা কিংবা পরিস্থিতির বিচার করে দুটি একই সঙ্গে হতে পারে।

মহিলা সাংবাদিকদের মধ্যে সর্বপ্রথম প্রিয়া রমানিই আকবরের নাম প্রকাশ্যে এনে অভিযোগ করেন। ৮ অক্টোবর করা এক টুইটে রমানি লেখেন, গত বছর একটি নিবন্ধে তিনি লিখেছিলেন যে এক সম্পাদক চাকরির ইন্টারভিউ-এর জন্য তাঁকে হোটেলের ঘরে ডেকে বিছানায় বসতে বলেন। আর সেই সম্পাদক হলেন এম জে আকবর। রমানির এই অভিযোগের পরই দেশ জুড়ে এবং বিশেষত রাজনৈতিক মহলে হইচই পড়ে যায়।
মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরে আকবর বলেছিলেন, তিনি ব্যক্তিগতভাবে ওই সব অভিযোগের মোকাবিলা করতে চান। তাই সরকারি পদটি ছাড়ছেন। অন্যদিকে, প্রিয়া রমানি বলেছেন তিনি মানহানির মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থন করতে প্রস্তুত। যাঁরা আকবরের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন, তাঁদের প্রত্যেককে “বিরাট ঝুঁকি” নিতে হয়েছে।

Facebook Comments

KOLKATA WEATHER
Thappad Shubh Mangal jyada Saavdhan Bhoot Love Aaj Kal Porshu Love Aaj Kal (लव आज कल 2) Professor Shonku Bombshell The Grudge অসুর রবিবার Sanjhbati
What's New Life